৯ টি খাবার যা পিরিয়ড নিয়মিত করতে সাহায্য করবে

অনিয়মিত মাসিক দূর করার উপায়

অনিয়মিত মাসিক দূর করার উপায় গুলির মধ্যে নিচে উল্লিখিত এই ৯ টি খাবার খুবই উপকারী। অনিয়মিত পিরিয়ড হল যখন আপনি লক্ষ্য করেন, বিলম্বিত, অস্বাভাবিক রক্তপাতের ধরন বা মাসিকের অসঙ্গতি। যদি আপনি এখন অনিয়মিতভাবে পিরিয়ড এ ভোগেন এবং নির্ধারিত সময়ের বাইরে চলে যান, তাহলে এটি চিন্তার বিষয়। আপনি আপনার খাদ্যতালিকায় নিয়মিত পিরিয়ডের জন্য সঠিক খাবার যোগ করে আপনার পিরিয়ডের ভারসাম্য বজায় রাখতে পারেন।

আসুন জেনে নি সেই ৯ টি জিনিস যেগুলি আপনার অনিয়মিত মাসিকের সমস্যার সমাধান করতে পারে। 

#১ পার্সলে:

পার্সলে

পার্সলে পেলভিক এলাকায় রক্তের সঠিক নিয়ন্ত্রনের জন্য একটি বিখ্যাত ঔষধি। এটি ধনিয়ার মতো দেখতে হয় এবং আমরা প্রায়শই এটি খাবার সাজানোর জন্য ব্যবহার করি। কিন্তু পার্সলেতে মিরিস্টিসিন এবং অ্যাপিওলের মতো যৌগ, ইস্ট্রোজেনের সঠিক উৎপাদনে সাহায্য করে। মাসিকের অনিয়ম কাটিয়ে উঠতে পার্সলে চা বা সিদ্ধ পার্সলে জল খেতে  পারেন।

#২ দারুচিনি:

দারুচিনি

দারুচিনি আপনার রক্ত ​​প্রবাহকে উদ্দীপিত করে এবং পর্যাপ্ত পরিমাণে ইস্ট্রোজেন তৈরি করে। এটি মাসিকের ব্যথা এবং বাধা থেকে দ্রুত মুক্তি দেয়। তাই বিভিন্ন খাবারে দারুচিনির ব্যাবহার করা ছাড়াও, আপনি এটি অনিয়মিত পিরিয়ড সম্পর্কিত সমস্যার জন্যও ব্যবহার করতে পারেন। সর্বাধিক সুবিধা পেতে, আপনার এক গ্লাস দুধের সাথে দারুচিনি ভালোভাবে মিশিয়ে গ্রহণ করুন।

#৩ জোয়ান:

আপনি যদি অনিয়মিত পিরিয়ড বা মাসিকের যন্ত্রণায় ভুগছেন, তাহলে আপনার এক গ্লাস উষ্ণ জলের সঙ্গে জোয়ান  পান করা উচিত। জোয়ান-এ অ্যান্টিস্পাসমোডিক গুণ রয়েছে যা মাসিকের অনিয়ম দূর করতে চমৎকারভাবে কাজ করে। তাছাড়া, তারা জরায়ুকে উদ্দীপিত করার জন্য চিত্তাকর্ষকভাবে কাজ করে।

#৪ পেপে:

পেপে

পেঁপেতে থাকা উচ্চমাত্রার ক্যারোটিন ঋতুস্রাবের চক্রকে স্বাভাবিক করে তোলে, যা নিয়মিত পিরিয়ডের জন্য এটি অন্যতম সেরা খাবার। এটি শরীরে ইস্ট্রোজেনের মাত্রা সঠিকভাবে উদ্দীপিত এবং নিয়ন্ত্রণ করে। পেঁপে খাওয়ার নিয়মিত অভ্যাস আপনার জরায়ুর সঠিক কার্যক্রমে সাহায্য করে। সুতরাং, আপনি মাসিকের ব্যথা এবং অনিয়মিত পিরিয়ড থেকে মুক্তি পেতে পারেন। সবসময় মনে রাখবেন গর্ভাবস্থায় পেঁপে এড়িয়ে চলুন

অনিয়মিত মাসিক বন্ধ করার ৮ টি ঘরোয়া উপায়

#৫ আদা:

আদা

আদায় উপস্থিত ভিটামিন সি এবং ম্যাগনেসিয়াম উপাদান অনিয়মিত পিরিয়ড থেকে স্বস্তি পেতে দারুণ সহায়তা  করে। আপনি যদি আপনার আদার চায়ে গুড় যোগ করেন, তাহলে আপনি অনিয়মিত মাসিক চক্র নিরাময়ের জন্য একটি ভাল ফলাফল আশা করতে পারেন। এটি শরীরে ইস্ট্রোজেনের প্রাকৃতিক উত্পাদন এবং আপনার পিরিয়ডের নিয়মিততা স্বাভাবিক করতে সহায়তা করে।

#৬ হলুদ:

হলুদ

হলুদ আপনার জরায়ুতে রক্তের মসৃণ প্রবাহকে বজায় রাখে। এটি আপনার পিরিয়ডকে চলন দেয় এবং পিরিয়ডের সময় প্রদাহ রোধ করে। আপনি গরম দুধে হলুদ এবং মধু মিশিয়ে খেলে প্রাকৃতিকভাবে আপনার পিরিয়ড নিয়ন্ত্রণ করতে পারেন।

৯ টি অনিয়মিত মাসিকের কারণ

#৭ কফি:

কফি

অনিয়মিত পিরিয়ড এবং অস্বাভাবিক মাসিক ব্যথায় আক্রান্ত রোগীদের জন্য কফিতে থাকা ক্যাফিন একটি প্রাকৃতিক ওষুধ। এটি ইস্ট্রোজেনের মাত্রা নিয়ন্ত্রণ করে, আপনার শ্রোণী অঞ্চলে রক্ত ​​প্রবাহ উন্নত করে এবং পিরিয়ড চলাকালীন রক্তনালীগুলি সংকুচিত করে।

#৮ বিটরুট:

বিটরুট আয়রন, ফলিক অ্যাসিড এবং ক্যালসিয়ামের একটি সমৃদ্ধ উৎস, এটি নিয়মিত পিরিয়ডের জন্য সেরা খাবারের শীর্ষ শ্রেণীতে থাকে। এটি অগত্যা শুধুমাত্র পিরিয়ডের অনিয়ম দূর করতে পারে না, তবে এটি পিরিয়ডের সময় ফোলাভাব দূর করতে পারে। এছাড়াও, বিটরুট একটি ইমেনাগগ যা আপনার শরীরে জল ধরে রাখার সমস্যা হ্রাস করে।

#৯ আপেল সিডার ভিনেগার ও মধু:

আপেল সিডার ভিনেগার আপনার শরীরের হরমোনের ভারসাম্য বজায় রাখতে সাহায্য করতে পারে। এটি অতিরিক্ত ওজন এবং অপ্রয়োজনীয় পেটের চর্বি কমায়। এটি PCOS- এর উপসর্গগুলিও কমাতে পারে, যা অনিয়মিত পিরিয়ডের অন্যতম প্রধান কারণ। মাসিকের অনিয়ম থেকে মুক্তি পেতে মধু এবং আপেল সিডার ভিনেগারের মিশ্রণ পান করুন। মধু তেতো স্বাদকে নিরপেক্ষ করে এবং আপেল সিডার ভিনেগারের সর্বাধিক সুবিধা পেতে আপনাকে সাহায্য করে।

কিনে নিন wow এর আপেল সিডার ভিনেগার, ক্লিক করুন

আমাদের লেখা ভাল লাগলে অবশ্যই আমাদের আমাদের ফেসবুক পেজ টি লাইক করুন এবং আমাদের লেখা গুলো আর লোকের সাথে বাগ করে নিন।

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না।